Search Here

Most Recent

২৪ জুলাই, ২০২১

তুঘলক বংশ | Medieval Indian History Mcq | Tughlak Dynasty

 তুঘলক বংশের ইতিহাস   


তুঘলক বংশ -Tughlak Dynasty (১৩২০-১৩২৫):

তুঘলকরা জাতিতে ছিলেন তুর্কি। ইবন বতুতা তুঘলক দের করোনা শাখার অন্তর্ভুক্ত বলে মনে করেন। তুঘলক বংশের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন গিয়াসউদ্দিন তুঘলক। গিয়াসউদ্দিন তুঘলক করণা তুর্কি এবং মোঙ্গলদের মিশ্রিত জনজাতি ছিল। তুঘলক কোন বংশের নাম ছিল না, এটা ব্যক্তিগত নাম ছিল। গিয়াসউদ্দিন তুঘলক গাজি নাম ধারণ করে সিংহাসনে বসে ছিলেন। তাই তাদের উত্তরাধিকারীদের তুঘলক বলা হয়।


তুঘলক বংশ | Medieval Indian History Mcq  www.gkghor.in
Delhi Sultanate Period | Tughlaq Dynasty In Bengali | Medieval Indian History



গিয়াসউদ্দিন তুঘলক :

গিয়াসউদ্দিন তুঘলক ছিলেন তুঘলক বংশের প্রতিষ্ঠাতা। তার প্রকৃত নাম ছিল গাজী গিয়াসউদ্দিন তুঘলক। গিয়াসউদ্দিন তুঘলক এর উপাধি ছিল আল-সাহিদ, মুহাম্মদ বিন তুঘলক এর সিক্কা থেকে গিয়াসউদ্দিনের এই উপাধি পাওয়া যায়। প্রসিদ্ধ আলাই আমির গিয়াসউদ্দিন নিজের জীবন জালাল উদ্দিনের অংরক্ষক হিসাবে শুরু করে ছিলেন। সুলতান হওয়ার পূর্বে তিনি পাঞ্জাবের সুবেদার ছিলেন এবং তার রাজধানী ছিল দিপালপুর। জালালউদ্দিন খলজি এবং গিয়াসউদ্দিন তুঘলক সুলতান হওয়ার পূর্বে পূর্ব উত্তর-পশ্চিম সীমান্তে রক্ষক নিযুক্ত হয়েছিলেন। গিয়াসউদ্দিন তুঘলক এর দিল্লির সুলতানদের মধ্যে প্রথম ছিলেন, যিনি কৃষকদের ভালোর জন্য কৃষি ক্ষেত্রে বিশেষ প্রচেষ্টা করেছিলেন। গিয়াসউদ্দিন তুঘলক তার রাজসভায় সংগীতের নিষেধ করেছিলেন।


 

গিয়াসউদ্দিন তুঘলক এর প্রশাসনিক ব্যবস্থা:

সুলতান হওয়ার তদুপরান্ত গিয়াসউদ্দিন তুঘলক অর্থনৈতিক সমস্যার সমাধানে মনোনিবেশ করেন। কারণ খসরু খা রাজ্যের সমস্ত ধন আমির এবং নিজামউদ্দিন আউলিয়াকে ভাগ করে দিয়েছিলেন।তদুপরান্ত গিয়াসউদ্দিন তুঘলক সকল প্রকার ধন রাজকোষে জমা দেওয়ার জন্য আদেশ করেন। গিয়াসউদ্দিন তুঘলক ন্যায়বিধির ক্ষেত্রে কঠোর দন্ডবিধি সমাপ্ত করে দিয়েছিলেন। গিয়াসউদ্দিন তুঘলক মদ এবং জুয়ার আসর বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা করেন। ডাক ব্যবস্থাকে পূর্ণরূপে সংগঠিত করার ব্যবস্থা  গিয়াসউদ্দিন তুঘলকই করেন।



মহম্মদ বিন তুঘলক(১৩২৫-১৩৫১):

গিয়াসউদ্দিন তুঘলক এর পর মহম্মদ বিন তুঘলক দিল্লির সুলতানি সিংহাসনে বসেন। তার প্রকৃত নাম ছিল ফখরুদ্দিন জৌনা খাঁ। উপনাম ছিল আবুল মজাহিদ। মুহাম্মদ বিন তুঘলক এর রাজ্যভিষেক হয় বলবনের লাল ভবনে। মুহাম্মদ বিন তুঘলক এর উপাধি ছিল উলুক খা। ইসামি মহম্মদ বিন তুঘলক কে কাফের বা বিধর্মী বলে অভিহিত করেছেন। রাজমন্দ্রি অভিলেখ থেকে মোহাম্মদ তুঘলঘের বিজয়ের কথা জানা যায়। মোহাম্মদ তুঘলক দিল্লির  সুলতানি শাসকদের মধ্যে সর্বাধিক শিক্ষিত ছিলেন। মুহাম্মদ বিন তুঘলক প্রথম সুলতান ছিলেন যিনি  সতী প্রথার উপর নিষেধ জারি করেন। মোহাম্মদ তুগলক প্রথম সুলতান ছিলেন, যিনি মধ্যকালীন ভারতের উত্তর এবং দক্ষিণ ভারতের রাজনৈতিক, প্রশাসনিক এবং সাংস্কৃতিক ঐক্যের চেষ্টা করেন। মুহাম্মদ বিন তুঘলক প্রথম সুলতান ছিলেন যিনি  চীন, ইরান, মিশর, সিরিয়া এবং বিভিন্ন দেশের বৈদেশিক সম্পর্ক স্থাপন করেন এবং রাজদূতের আদান প্রদান করেন।



মুহাম্মদ বিন তুঘলক কৃষিক্ষেত্রে ইজারাদারি প্রথা শুরু করেন। কৃষি সম্পর্কিত বিভাগ  আমির-এ -কহি মুহাম্মদ বিন তুঘলক প্রথম শুরু করেন। 1327 খ্রিস্টাব্দে মহম্মদ তুঘলক নিজের রাজধানী দেবগিড়িতে স্থানান্তরিত করেন এবং দেবগিড়ির নাম পরিবর্তন করে রাখেন দৌলতাবাদ।



মহম্মদ বিন তুঘলকের আমলে মোট 34 টি বিদ্রোহ সংঘটিত হয়েছিল। সর্বাধিক বিদ্রোহ দেখা দিয়েছিল দক্ষিণ ভারতে, মোট 27 টি। 1326 খ্রিস্টাব্দে বাহাউদ্দিন গুর্শাপ প্রথম বিদ্রোহ ঘোষণা করেন। শেষ বিদ্রোহ 1351 খ্রিস্টাব্দে তগী ঘোষণা  করেছিলেন।



ফিরোজ তুঘলক (১৩৫১-১৩৮৮):

ফিরোজ তুঘলক জন্ম গ্রহণ করেন ১৩০৯ খ্রিস্টাব্দে। তার প্রকৃত নাম ছিল কমালুদ্দিন ফিরো। মহম্মদ তুঘলকের মৃত্যুর তিন দিন পর থট্টাতে ২০ মার্চ ১৩৫১ খ্রিস্টাব্দে ফিরোজ তুঘলক রাজ্যরোহন করেন। তিনি খালিফাদের কাছ থেকে সৈয়দ-উস-সালাতিন উপাধি গ্রহণ করেন।  বরণী ফিরোজ শাহ তুঘলকে দিল্লির সুলতানদের মধ্যে আদর্শ সুলতান বলে অভিহিত করেছেন। আর সি মজুমদার এর মতে- ফিরোজ তুঘলক একজন ধর্মান্ধ সুলতান এবং সিকান্দার লোদী এবং ঔরঙ্গজেবের অগ্রজ ছিলেন।



ফিরোজ তুঘলকের ইতিহাস এবং চিকিৎসা শাস্ত্রে বিশেষ জ্ঞান ছিল। ফিরোজ তুঘলক একজন নির্বাচিত সুলতান ছিলেন। আমিরদের এবং সৈনিকদের সন্তুষ্ট করার জন্য ফিরোজ তুঘলক বংশ আনুগত্য সিদ্ধান্ত জারি করেন। তার শাসনকাল মধ্যকালীন ভারতের সম্পূর্ণ ইতিহাসে সর্বাধিক ভ্রষ্টাচারের যুগ ছিল। ফিরোজ তুঘলক প্রথম সুলতান ছিলেন, তিনি রাজ্যের চরিত্র ইসলামিক ঘোষণা করেন। তিনি রাজ্যের চব্বিশটি কর বাতিল করে মাত্র চারটি কর জারি করেন। সর্বপ্রথম ফিরোজ তুঘলক শ্রম বিভাগের স্থাপন করেন।



 এছাড়াও তুঘলক বংশের অন্যান্য সুলতানদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল নাসিরউদ্দিন মাহমুদ শাহ, আমির তৈমুর লং।



👉 দিল্লি সুরতানি যুগ  দাস বংশ


👉খলজি বংশ | Khalji Dynasty 


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন